Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৭ মে ২০২১

ইতিহাস

০১ জানুয়ারী ২০০৮

ন্যাশনাল মনিটরিং সেন্টার (এনএমসিপ্রতিষ্ঠা

২০০৮ সালে গনপ্রজাত্তন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং মোবাইল অপারেটরদের অর্থায়নে ডিজিএফআই ভবনে ন্যাশনাল মনিটরিং সেন্টার (এনএমসি) গঠিত হয়। এনএমসি নিরলসভাবে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করার মাধ্যমে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা সমূহকে ইন্টারসেপশন সহায়তা প্রদান করে। শুরু থেকেই জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

৩১ জানুয়ারী ২০১৩

ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি) প্রতিষ্ঠা

বিশ্বব্যাপী অবাধ তথ্য প্রবাহের কারনে তথ্যপ্রযুক্তি কেন্দ্রিক অপরাধ সংঘটনের মাত্রা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাওয়ারপরিপ্রেক্ষিতে গনপ্রজাত্রন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনক্রমে ৩১ জানুয়ারী, ২০১৩ ইং তারিখে এনএমসি পরিবর্তিত হয়ে ‘’ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার(এনটিএমসি)’’ নামে নবরূপে আত্নপ্রকাশ করে। সংস্থাটি ফেব্রুয়ারী, ২০১৪ সাল থেকে একটি স্বতন্ত্র সংস্থা হিসাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের অধীনে কার্যক্রম শুরু করে।

০১ জানুয়ারী ২০১৪

জনবল

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশাবলে এনটিএমসির অধীনে ৪৪ জন জনবল (২৩ জন কর্মকর্তা ও ২১ জন অন্যান্য পদবি) এর পদ সৃষ্টি করা হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা হতে জনবল সমন্বয় করা হয়।

০৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৪

প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইবনে ফজল সায়েখুজ্জামান , বিএসপি, এসজিপি, এএফডব্লিউসি পিএসসি

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশক্রমে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইবনে ফজল সায়েখুজ্জামান ৪ঠা ফেব্রুয়ারী, ২০১৪ইং তারিখে এনটিএমসির প্রথম পরিচালক হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহন করেন। দায়িত্বভার গ্রহনের পর আর্থিক ও জনবল সংকটসহ নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও তিনি কঠোর পরিশ্রম ও বিচক্ষণ দিকনির্দেশনার মাধ্যমে এনটিএমসিকে একটি পূর্ণাজ্ঞ সংস্থায় পরিণত করার লক্ষে ব্যাপক কার্যক্রম শুরু করেন। 

০১ আগস্ট ২০১৪

অপারেশনাল সক্ষমতা বৃদ্ধি

বিশ্বব্যাপী কারিগরী উৎকর্ষতার কারণে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি পায় । এ ক্ষেত্রে এনটিএমসির সক্ষমতা সমানভাবে শক্তিশালী করার প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বহুল ব্যবহৃত উন্নত সিস্টেম ক্রয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। সিস্টেমটি স্থাপনের মাধ্যমে দেশের টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সক্ষমতা বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে। যা আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অপরাধ দমনে কার্যকরী ভূমিকা নিতে সহায়তা করবে।

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৪

এনটিএমসির অফিস বিল্ডিং নির্মাণের অনুমতি

এনটিএমসি বিভিন্ন পর্যায়ে সক্ষমতা বৃদ্ধির কারণে ডিজিএফআই ভবনের সীমিত পরিসরে বিভিন্ন অবকাঠামোগত অসুবিধার সম্মুখীন হয়। যার ফলশ্রুতিতে জাতীয় নিরাপত্তায় এনটিএমসির ভূমিকার সামগ্রিক প্রেক্ষাপট ও বাস্তবতা বিবেচনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে ১১ই সেপ্টেম্বর,২০১৪ ইং তারিখে নিজস্ব বিশেষায়িত ভবন নির্মাণের নির্দেশ দেয়া হয়। এনটিএমসির অফিস বিল্ডিং এর জন্য তেজগাঁও বিমান বন্দরস্থ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ত্রানভান্ডার সংলগ্ন ০.৯৪ একর জমি বরাদ্ধ দেয়া হয়।

০৮ জানুয়ারী ২০১৫

অফিস বিল্ডিং নির্মাণ কাজ শুরু

তেজগাঁও বিমান বন্দরস্থ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ত্রানভান্ডার সংলগ্ন নির্ধারিত ০.৯৪ একর এলাকাজুড়ে ০৮ই জানুয়ারী, ২০১৫ ইং তারিখে এনটিএমসির নিজস্ব ভবন স্থাপনের কাজ শুরু হয়। কাজ শুরুর শুভ উদ্বোধন করেন সংস্থাটির সাবেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইবনে ফজল সায়েখুজ্জামান , এএফডব্লিউসি , পিএসসি।

০১ জানুয়ারী ২০১৭

এনটিএমসি অফিস বিল্ডিং উদ্বোধন

পহেলা জানুয়ারী ২০১৭ইং তারিখে একটি অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এনটিএমসি মূল কার্যালয় সদর দপ্তর ডিজিএফআই ভবন হতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভাণ্ডার সংলগ্ন এলাকায় নবনির্মিত ভবনে স্থানান্তরিত হয়ে কার্যক্রম শুরু করে। মূল কার্যালয় ভবনের শুভ উদ্বোধন করেন গনপ্রজাত্রন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল তারিক আহমেদ সিদ্দিক, আরসিডিএস ,পিএসসি (অবঃ)। এছাড়াও উক্ত অনুষ্ঠানে মাননীয় ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রনালয়ের সচিব মহাদয়গণ, বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের প্রধানগণসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গগণ উপস্থিত ছিলেন।

০৬ মার্চ ২০১৭

বর্তমান পরিচালক

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশক্রমে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান ৬ই মার্চ, ২০১৭ইং তারিখে এনটিএমসির পরিচালক হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহন করেন। 

০৬ এপ্রিল ২০১৭

 প্রযুক্তির আধুনিকায়ন

তথ্য প্রযুক্তির বিকাশ ও ইন্টারনেটের ব্যাপক বিস্তৃতির কারণে আইনপ্রয়োগকারী ও গোয়েন্দা সংস্থাসমূহ ইন্টারনেট ভিত্তিক অপরাধ কার্যক্রম তদন্তে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয় । উক্ত সমস্যা বিবেচনা করে বর্তমান পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান অত্যাধুনিক প্রযুক্তির যন্ত্রপাতির ক্রয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন পরিসরে এনটিএমসির সক্ষমতা বৃদ্ধির প্রকল্প নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।


Share with :

Facebook Facebook